ঢাকায় তৈরি পোশাক কারখানায় চাকরি দেয়ার নামে যৌন পল্লীতে বিক্রি।

ঢাকায় তৈরি পোশাক কারখানায় চাকরি দেয়ার নামে যৌন পল্লীতে বিক্রি।


এম, রায়হান আলী রাজশাহী থেকেঃ


গোদাগাড়ীর এক তরুণীকে বাড়ি থেকে নিয়ে গিয়েছিল রাজশাহী নগরী গুলজারবাগ এলাকার আলিফ। এরপর ওই তরুণীকে ২৫ হাজার টাকার বিনিময়ে সে বিক্রি করে দেয় রাজবাড়ির দৌলদিয়া যৌনপল্লীতে।
প্রায় ১৫ দিন পর যৌনপল্লী থেকে কৌশলে পালিয়ে বাড়ি আসে ওই তরুণী। এরপর পরিবার জানতে পারে, চাকরি নয়, তাকে বিক্রি করা হয়েছিল নিষিদ্ধ পল্লীতে।
তরুণীর পরিবার বিষয়টি থানায় জানায়। পুলিশ আজ মঙ্গলবার (১৬ জুন) ভোরে গোদাগাড়ী উপজেলার উজানপাড়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে তরুণীকে বিক্রি করে দেয়া যুবক আলিফকে। সে রাজশাহী মহানগরীর গুড়িপাড়া গুলজারবাগ এলাকার মকবুল হোসেনের ছেলে।
রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতেখায়ের আলম এসব তথ্য দিয়ে জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আলিফ স্বীকার করেছে সে মানবপাচারকারী একটি চক্রের সদস্য। এ চক্রের আরও তিনজনের নাম সে জানিয়েছে। পুলিশ এখন তাদের খুঁজছে।
পুলিশ কর্মকর্তা ইফতেখায়ের আলম জানান, গত ৯ জুন গোদাগাড়ীর ওই অসহায় তরুণীকে ঢাকায় তৈরি পোশাক কারখানায় চাকরি দেয়ার প্রলোভন দিয়ে বাড়ি থেকে নিয়ে যায় আলিফ। এরপর ২৫ হাজার টাকায় তাকে দৌলদিয়া যৌনপল্লীতে বিক্রি করে দেয়। সোমবার (১৫ জুন) ওই তরুণী কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে এসে পরিবারকে বিষয়টি জানায়। পরিবারের পক্ষ থেকে বিষয়টি গোদাগাড়ী মডেল থানায় জানানো হয়। বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশ সুপার মোঃ শহিদুল্লাহ গোদাগাড়ী মডেল থানাকে আলিফকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন। গোদাগাড়ী থানার পুলিশ মঙ্গলবার ভোরে আলিফকে গ্রেপ্তার করে।
এ ঘটনায় গোদাগাড়ী থানায় মানবপাচার আইনে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে আলিফকে সে মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *